Projukti-71

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করা বা অনলাইনে ইনকাম কিভাবে করে তার জন্য আজকাল গুগলে,বাইডু,ইয়াহু এর মত জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিং এ খুব বেশি পরিমানে সার্চ করা হয়! আপনি নিজেও কখনো আগ্রহের কৌতুহল হয়ে প্রসেসটা বা নিয়ম টা জানার জন্য  গুগলে সার্চ করে জেনে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন। আমি চ্যালেজ্ঞ করে  বলতে পারি যে, আপনি যদি পুরো ব্লগটি পড়েন তাহলে আপনার সব অজানা জানা হয়ে যাবে। চলুন এই নিয়ে লিখা যাক…

অনলাইনে টাকা আয় করার উপায়সমূহঃ আপনি যদি এই বিষয়ে অজ্ঞ হয়ে থাকেন একদম না জানেন তাহলে অবশ্যই ব্রেইন এ ঘুরপাক খাচ্ছে, আসলে আদৌ ঘরে বসে কি অনলাইনে টাকা আয় কিংবা ইনকাম করা যায়?  আপনার প্রশ্নের জবাবে বলবো হ্যাঁ অবশ্যই আয় করা যায় যদি আপনি সঠিক উপায়ে কাজ করতে পারেন।  আপনি এই বিষয়টি  নিয়ে পরিষ্কারভাবে জেনে রাখুন যে বর্তমানে অনলাইন হতে অনেক বিভিন্ন উপায়ে টাকা ইনকাম করা সম্ভব যদি আপনি কিছু টেকনিক্যাল কাজ জেনে থাকেন । কিভাবে অনলাইন হতে টাকা ইনকাম করা যায় সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে আজকের এই ব্লগ পোস্ট তবে আজকের মূল বিষয় হচ্ছে শুধু মোবাইল দিয়ে কিভাবে আয় করা যাবে তা  নিয়ে লিখা।

YouTube হতে মোবাইল দিয়ে টাকা আয়ঃ আপনি যদি ঘুরতে পছন্দ করেন তাহলে  সুন্দর সুন্দর প্রকৃতিক দৃশ্যগুলো আপনার মোবাইলের ক্যামেরায় ফ্রেমবন্দী করেও এ কাজটি সহজে করতে পারেন। যে বিষয়  ভালো বুজেন,ভালভাবে জানেন সে বিষয়ে বিভিন্ন ভিডিও টেউটরিয়াল তৈরী করেও মোবাইল দিয়ে আয় করতে পারেন।  অনেক আপু আছেন চাইলে বিভিন্ন রান্নার তৈরি করার রেসিপি টিপ মোবাইল এ ধারন করে ইউ্টিউব এ দিতে পারেন।

Swagbucks(সোয়াববাক্স)ঃ আহ বিষয় টি সচারাচর অনেক এ জানেন না।  তবে এইটা একদম মোবাইল দিয়ে আয় করার সহজ একটা প্রিয় মাধ্যম হিসেবে গণ্য করা হয়। কিছু কাজ সম্পূর্ণ হতে পাঁচ মিনিট সময় নেয়। এই কাজের মধ্যে দৈনিক সমীক্ষা, ভিডিও দেখা এবং গেমস খেলা অন্তর্ভুক্ত। এবং, সোয়াগবাক্স আপনাকে ওয়েবে অনুসন্ধান করার জন্য অর্থ প্রদান করে! কখনও কখনও, মনে হবে যেন এই কাজগুলি এমনকি  যে আপনাকে টাকা দে!!!!! 

আপনি প্রতিটি সম্পন্ন কাজের জন্য নির্দিষ্ট পয়েন্ট পাবেন। আপনি পেপাল নগদ বা উপহার কার্ডের জন্য আপনার পয়েন্টগুলি খালাস বা ব্যবহার করতে পারেন। উপহার কার্ডের জন্য, আপনার পছন্দসই রেস্তোঁরা এবং স্টোরগুলির জন্য আপনার ছাড়গুলি $ 3 থেকে শুরু হয়। এবং, আপনি সাইন-আপ বোনাস হিসাবে আপনার প্রথম $ 5 উপার্জন করতে পারেন এখান থেকে একদম সহেজেই। বিস্তারতি জানতে কমেন্ট জানাতে ভুলবেন না।

মোবাইল দিয়ে ব্লগে আর্টিকেল লিখে আয় করার পন্থা আপনি গুগল ব্লগারে অথবা ওয়ার্ডপ্রেসে বিনা মূল্যে একটি ব্লগ তৈরী করে নিতে পারেন আপনার নিশ অনুযায়ী। তাছাড়া গুগল ব্লগার তৈরি করা খুব সহজ হওয়ায় আপনি আপনার মোবাইল দিয়ে মাত্র ১০-১৫ মিনিটে নিজের একটি ব্লগ তৈরি করে নিতে পারেন। আপনার যে বিষয়ে পরিপূর্ণ জ্ঞান কিংবা লিখার জন্য পর্যাপ্ত সময় আছে, আপনি সে বিষয় নিয়ে লিখে যাবেন। এ ক্ষেত্রে হয়তো আপনি প্রথম ১-২-৩ মাস একটু কষ্ট করতে হবে। আপনি প্রতিদিন নিত্য নতুন বিষয়ে আর্টিকেল লিখতে থাকেন। আপনার বিষয়টি যদি ইউনিক এবং ফ্রেন্ডলি হয় ভিজিটর অবশ্যই আপনার ব্লগে আসবে। এ ক্ষেত্রে কাঙ্খিত পথ পেতে আপনাকে বেশী দিন অপেক্ষা করতে হবে না। আপনি নিজে নিজেই টাকা উপার্জনের পথ সুঘম করে নিতে পারবেন অল্প কষ্টের মাধ্যমে।

ভার্চুয়াল সহকারী (অনলাইনে গ্রাহকদের সাথে কথা বলা) এমন অনেক ব্যক্তি এবং সহযোগী সংস্থাগুলি রয়েছে যারা ভার্চুয়াল সহায়কদের সন্ধান করা থাকে এবং তাদের খুব ভাল অর্থ প্রদান করতে ইচ্ছুক। কেননা এটি করার মাধ্যমে তারা তাদের গ্রাহক সেরা দিগুন করতে পারে। মোবাইল কোম্পানির কল সেন্তার এর অপারেটর হিসেবে, গ্রাহকদের মোবাইল এর মাধ্মে ইমেইল করা পন্য বেচাকেনায় সহযোগিতা করা যায়। অনেক ফেসবুক গ্রুপ এর অন্যের প্রোডাকট এর রিভিঊ করেও ভালো আয় করতে পারেন। এটি করার জন্য আপনার কোনও শারীরিক অফিসের দরকার নেই, আপনার বাড়ির আরাম থেকে আপনি এটি নিরীক্ষণ বা শেষ করতে পারেন এবং সুবিধাজনকভাবে কাজ ও করতে পারেন।virtual-assistant

ফেসবুক গ্রুপ এ মোবাইল এর মাধ্যমে আয় করা: এইটা এক ধরনের এফিলিয়েট স্টাইলেও করতে পারেন অথবা আপনার কিছু প্রোডাক্ট মোবাইল এর মাধ্যমে ফেসবুক গ্রুপ পোস্ট করে অডিয়েন্স কেনার জন্য আগ্রহী করে তুলতে পারেন। অনেক কোম্পানী আছে যারা কিনা প্রোমোশন করার জন্য আপনাকে অথবা যারা এটি করতে আগ্রহী তাদের কে খুজে থাকে। প্রতি টা পোস্ট এর জন্য আপনাকে ৫০-১০০ টাকা পর্যন্ত দিয়ে থাকে।

InboxDollarsঃ ইনবক্সডোলার্স সম্ভবত সোয়াগবাকসের পরে পরবর্তী বৃহত্তম “গেট-পেইড-টু” প্ল্যাটফর্ম। ইনবক্সডোলারদের মাধ্যমে অর্থোপার্জনের বিভিন্ন উপায় রয়েছে এর মধ্যে কয়েকটি হচ্ছে ইমেল পড়া, সমীক্ষা নেওয়া এবং ভিডিও দেখার অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।আপনার প্রতিদিনের উপার্জনের সম্ভাবনা দ্বিগুণ করার জন্য, আপনি দুটি প্ল্যাটফর্মগুলিতে যোগদানের বিষয়টি বিবেচনা করতে পারেন। ইনবক্সডোলার্স ছাড়াও, আপনি সোয়াগবাকসে যোগ দিতে পারেন। অথবা, আপনি এই পৃষ্ঠার অন্য কোনও প্ল্যাটফর্মগুলিতে যোগ দিতে পারেন।

Android Apps দিয়ে টাকা আয়ঃ এন্ড্রয়েড এ্যাপ দিয়ে কিভাবে টাকা আয় করা এই বিষয় অনেকে সন্ধিহান? এই প্রশ্নের জবাবে আমি বলব এন্ড্রয়েড এ্যাপ দিয়ে টাকা আয় করা যায় ১০০% নিশ্চিত তবে সেটা খুব সীমিত  হয় এবং অস্থায়ি একটা উপায়। অনলাইনে এমন কিছু এন্ড্রয়েড এ্যাপ আছে যেগুলো থেকে ভালো রিভিউ করার মাধ্যমে আপনি কখনো কখনো ৫০০ টাকা আয় করতে পারবেন।  এইক্ষেত্রে  কিছু এ্যাপ রয়েছে যারা কিনা শুধু আপনাকে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনের উপরে ক্লিক করার মাধ্যমে কিছু টাকা দিয়ে থাকবে । কোন কোন এন্ড্রয়েড এ্যাপ এ প্রতিটা ক্লিক যেমন ১০০ টি বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার পর ১০০ টাকা দিয়ে থাকে। এখন আপনি নিজেই বিবেচনা করুন যে এন্ড্রয়েড এ্যাপ শুধুমাত্র আপনাকে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার মত একটা বিরক্তকর কাজ দিচ্ছে আর ওরা এডসেন্স ব্যবহার করে কত টাকা আয় করে নিচ্ছে । আপনি যদি এন্ড্রয়েড এ্যাপ এর মাধ্যমে  টাকা আয় করতে চান তাহলে গুগল প্লে-স্টোরে গিয়ে সার্চ করুন “Earning App, Online Income App, Recharge App এর মত অনেক ধরনের অনলাইন আয়ের এন্ড্রয়েড এ্যাপ পেয়ে যাবেন সহজেই।একটি বিশ্বস্ত এ্যাপ হচ্ছে “MCent“, “Amulyam“, “Pocket Money“, “TaskBucks”.  এইগুলো ডাউনলোড করে ইনস্টল করার পর আপনাকে একেকটি এক এক ধরনের কাজ  দিয়ে থাকবে। ইউটিউব এ এই ধরনের টিউটোরিয়াল দেখে ইন্সটল করে নিইয়ে কাজে লেগে যেতে পারেন Mechanical Turkঃ আপনি কি বিনামূল্যে উপহার কার্ড উপার্জন করতে চান? আপনার অ্যামাজনের যান্ত্রিক তুর্ক (এমটুর্ক) আয়ের প্রবাহ হিসাবে বিবেচনা করা উচিত। সত্যি কথা বলতে, এমটুর্ক ট্যাবলেট এবং কম্পিউটারগুলির জন্য সেরা। এর অর্থ আপনার আইফোন এমটুর্ক-বান্ধব নাও হতে পারে। তবে, কয়েকটি মোবাইল-বান্ধব কাজও রয়েছে (এইচআইটি)।আপনার ফোনের জন্য সবচেয়ে ভাল কী কাজ করে তা আপনাকে নির্ধারণ করতে হবে। বিকল্পের মধ্যে জরিপ নেওয়া এবং চিত্রগুলি থেকে ডেটা প্রবেশ করা অন্তর্ভুক্ত।  তারপর আপনি কি কাজ করবেন নির্ধারন করবেন। এইরকম মোবাইল দিয়ে আয় করার অনেক অনেক মাধ্যম রয়েছে তার একটা লিস্ট আপনাদের কে দিয়ে রাখি যদি এইবিষয়গুলো নিয়ে জানতে চান জনাবেন কমেন্ট এ . এইগুলো ইন্টারনেশনাল জনপ্রিয় মোবইল দিয়ে আয় করার মাধ্যম mobile-apps

  • Uber
  • Gift Card Granny
  • Foap
  • Ibotta
  • SecondSpin
  • Music Xray
  • Qmee
  • Mobee
  • Slidejoy
  • Receipt Hog
  • Clarity Money

অনলাইন আয়ের শেষ পরামর্শঃ সত্যিকার অর্থে অনলাইন এ আয়ের বিষয়টি অনেক লম্বা এবং দীর্ঘ একটা নিয়মের মধ্য দিয়ে আপনাকে যেতে হবে যদি ভালো আয় করতে চান। আপনি যদি চান আজকে থেকেই আয় করতে পারবেন শুধুমাত্রে উপরের যেকোন একটা কাজ শুরু করলেই। তবে নগদ ইনকামের দেখা পেতে আপনাকে কাজ করেই যেতে হবে। তবে আমি মনে করি আগে ক্যারিয়ার ডেভেলপ করার উচিত আয়ের পিছনে না ছুটে। কেননা আপনি ভালো কোন কাজ যেমন, ডিজিটাল মার্কেটিং,গ্রাফিক্স,ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপ যেকোন একটা কাজ শিখলে আপনার আয়ের পথের অভাব হবে না। কাজ জানলে কাজ আপনাকে খুজে নিবে। তাই শেষ কথা হচ্ছে যারা সত্যিকার ভাবে অনালাইন থেকে ভালো আয় করতে চান তারা ক্যরিয়ার ডেভেলপ করুন আর যারা পার্ট-টাইম টাকার প্রয়োজন তারা উপরের যেকোন একটা কাজ করে মাসিক কিছু ইনকাম সোর্স বাডিয়ে নিতে পারবেন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here